Bangladesh News24

সব

সড়ক-মহাসড়ক যান চলাচলের উপযোগী রাখুন

বাস ও ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শেষ। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদ্যাপনের জন্য ঢাকা ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ। কিন্তু নির্বিঘ্নে প্রিয়জনদের কাছে পৌঁছানো নিয়ে সংশয় থেকে যাচ্ছে। অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে দেশের সড়ক-মহাসড়কগুলোর এখন বেহালদশা। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের ২১ জেলার সাত হাজার ১৩০ কিলোমিটার সড়ক। ওদিকে মহাসড়কগুলোতে যানজট লেগেই আছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রেলপথ। ফলে ঈদ যাত্রা নিয়ে চরম আতঙ্ক ও উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে মানুষ। কিভাবে ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করা যায়, আমরা তা জানতে চেয়েছিলাম কালের কণ্ঠ’র পাঠকদের কাছে। ই-মেইল ও টেলিফোনে দেওয়া মতামত এখানে তুলে ধরা হলো

► অন্য যেকোনোবারের চেয়ে এবারের ঈদ যাত্রা হবে চ্যালেঞ্জিং। বন্যার কারণে সড়ক ও রেলপথ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ঘরমুখো মানুষকে চরম ভোগান্তির মুখে পড়তে হবে।
এবারের ঈদের ছুটি কম হওয়ায় সবাই একসঙ্গে ঘরমুখো হবে ও একই সময় ঢাকামুখী হবে। এর ফলে তীব্র যানজট দেখা দেবে। তাই এই প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় ঈদের ছুটি একটু বাড়িয়ে দিলে ঘরমুখো মানুষের ঈদ যাত্রা কিছুটা স্বস্তিদায়ক হবে। পাশাপাশি স্থানীয় সরকার সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো যেন তাদের আওতায় থাকা সড়কগুলো মেরামতের ব্যবস্থা করে। এতে ভোগান্তি অনেকটা কমবে।

এম এ শাক্কুর আলম

জিনজিরা, ঢাকা।

► এই ঈদের সময়ে বন্যাকবলিত এলাকার রাস্তাঘাটগুলো যেভাবেই হোক মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করে তুলতে হবে। হয়তো একসঙ্গে সব মেরামত সম্ভব হবে না; কিন্তু কিছুটা হলেও তা করতে হবে। পাশাপাশি যেভাবেই হোক কালোবাজারি টিকিট বিক্রেতাদের প্রতিরোধ করতে হবে। কিছু অসাধু ব্যক্তি বরাবরই যানবাহনের টিকিট বুকিং করে রেখে পরে উচ্চমূল্যে বিক্রি করে। এটা বন্ধ করার ব্যবস্থা করতে হবে। লঞ্চের অতিরিক্ত যাত্রী বহন বন্ধ করতে হবে। এ ব্যাপারে ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে তৎপর হতে হবে। অন্তত ঢাকা সদরঘাট থেকে মুন্সীগঞ্জ সীমান্ত পর্যন্ত এই তদারকি অব্যাহত রাখতে হবে। তাহলেই ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে।

নাদিম খান

ভাইজোড়া, পিরোজপুর।

► দেশের যোগাযোগমন্ত্রী বারবার বলছেন, ঈদের আগে ঢাকা থেকে যমুনা সেতু পর্যন্ত এবং রাজশাহী, বগুড়া, কুষ্টিয়ার রাস্তাগুলো নাকি মেরামত করা হবে। কিন্তু এটা এ সময়ে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। বরং শীতের সময়ে এই কাজগুলো ভাগ করে দিয়ে ভালোভাবে করতে হবে। যদি একজন ঠিকাদারকে সব কাজ দেওয়া হয়, তাহলে তা সুষ্ঠুভাবে করা সম্ভব হবে না। তাই যোগ্যতাভিত্তিক ভাগাভাগি করে কাজগুলো দেওয়া দরকার।

টিটো রহমান

পাবনা।

► ঈদের সময় চরম এক ভোগান্তির নাম বাস-লঞ্চ-ট্রেনের টিকিট না পাওয়া। এটা যেন অবধারিত ভোগান্তি, যা যুগ যুগ ধরে চলে আসছে এবং চলবে। বছরের এই ঈদের সময়টায় মানুষ যখন গ্রামমুখী হয়, তখন তাদের মনে আনন্দের চেয়ে নিরানন্দই বেশি থাকে। জীবন বাজি রেখে তারা ছুটে চলে গ্রামে। অথচ টিকিট কালোবাজারিদের ভয়াল থাবায় তাদের যাত্রা নির্বিঘ্ন হয় না। এ ব্যাপারে যদি দৃষ্টি দেওয়া হয়, তবে মূল সমস্যার সমাধান হবে। পাশাপাশি রাস্তাঘাটের দিকে খেয়াল রেখে যথেষ্ট পরিমাণে ট্রাফিক পুলিশের ব্যবস্থা করে ও তদারকি করতে পারলে যাত্রা নির্বিঘ্ন হতে পারে।

রিয়াজুল ফাতেমী

কুমারখালী, কুষ্টিয়া।

► প্রতিবছরই ঈদ যাত্রায় বিভিন্ন যানবাহনে নানা রকমের দুর্ঘটনা ঘটে। এ জন্য আমাদের আগে থেকেই সতর্ক হওয়া উচিত। ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে করণীয় হলো—যানবাহন নিয়ন্ত্রণে নিয়োজিত ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা বাড়াতে হবে, ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে প্রয়োগ করতে হবে, দীর্ঘদিনের পুরনো লঞ্চ-বাস চলাচল নিষিদ্ধ করতে হবে, লঞ্চ-ট্রেন-বাসে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা বন্ধ করতে হবে, ট্রাফিক আইন সম্পর্কে রেডিও, টেলিভিশন, পত্রপত্রিকা ও অন্যান্য প্রচারমাধ্যমের দ্বারা জনগণকে সচেতন করতে হবে।

জাহাঙ্গীর কবির পলাশ

শ্রীধরপুর, বারইখালী, মুন্সীগঞ্জ।

► ভাঙাচোরা সড়ক, সরু সেতু, চার লেন ও ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ এবং ট্রাফিক অব্যবস্থাপনায় সড়ক-মহাসড়কে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। বিশেষ করে সড়ক ভাঙাচোরা থাকায় গাড়ির গতিও কমে যাচ্ছে। এসব সমস্যার সমাধান না করা হলে ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করা সম্ভব নয়।

আবদুল কাদের

বাসাইল, সিরাজগঞ্জ।

► ঢাকার প্রায় কোটি মানুষ ঈদ উপলক্ষে বাইরে যায়। ফলে সড়কপথসহ বিভিন্ন পথ ও বিভিন্ন যানবাহনের ওপর চাপ বাড়ে। এই চাপ অনেক সময় সামাল দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না। দুই ঈদে দুই ধরনের পরিস্থিতি বিরাজ করে। কোরবানির ঈদের সময় পশু ঢাকার হাটগুলোয় প্রবেশ করে, মালিক ও ব্যবসায়ীরাও থাকে। ঢাকায় এমন বিপুল জনসমাগম বাড়তি চাপ তৈরি করে। চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় মানুষকে। পথে পথে থাকে নানা বিড়ম্বনা। দীর্ঘ যানজটে আটকে থাকে যানবাহন। সময় লাগে দ্বিগুণ বা তার চেয়েও বেশি। একদিকে কোরবানির পশুবোঝাই ট্রাক, অন্যদিকে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও যাত্রী ওঠানামা। ফলে দূরপাল্লার যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রাস্তার দুরবস্থা। এ অবস্থায় ঈদ যাত্রা কতটা নির্বিঘ্ন করা সম্ভব হবে তা বলা মুশকিল।

রহমান মিজান

মাসকান্দা, ময়মনসিংহ।

► ঈদ মানেই আনন্দ, ঈদ মানেই খুশি, ঈদ মানেই গ্রামের বাড়ি ফেরার হিড়িক। কর্মস্থল থেকে আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদ করতে যাওয়ার প্রতিযোগিতা। বছরের দুটি সময় মানুষ হয়ে ওঠে গ্রামমুখী। বেশির ভাগ চাকরিজীবীর ছুটি হয় ঈদের এক-দুই দিন আগে। যার কারণে স্বাভাবিক যাত্রা বিঘ্নিত হয়। নানা রকম সমস্যার শিকার হতে হয় যাত্রীদের। নানা রকম ঝুঁকির মুখোমুখি হতে হয় মানুষকে। দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘটে ভয়ানক সব দুর্ঘটনা। এমন অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে দেশের পরিবহন ও সড়ক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে আইন-কানুনের কড়া নীতি প্রণয়ন করতে হবে। বাস, ট্রেনের ছাদে যাতায়াত করার ঝুঁকি সম্পর্কে সবাইকে অবহিত করতে হবে। তাহলেই ঈদ যাত্রা সহজ ও সুন্দর হবে বলে আশা করা যায়।

এস আর শানু খান

শালিখা, মাগুরা।

► ঈদের সময় ফেরিঘাটগুলোতে যানজট নিরসন করতে হবে। বিশেষ করে মহাসড়কগুলোতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে ট্রাফিক পুলিশ বাড়াতে হবে।

নাবিল কামাল

মিরপুর, ঢাকা।

► সামনে ঈদ। মানুষের দুশ্চিন্তার শেষ নেই। এবার ঈদুল ফিতরের মতো লম্বা ছুটি নেই। তা ছাড়া অতিবৃষ্টি, বন্যার কারণে দেশের মহাসড়কগুলোর বেহাল দশা। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ২১ জেলার সাত হাজার ১৩০ কিলোমিটার রাস্তা। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের মহাসড়ক ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, দেশের ৩৯ শতাংশ সড়ক ভালো অবস্থায় আছে। ৩৭ শতাংশ ভাঙা। ২৪ শতাংশ মোটামুটি চলনসই। এই স্বল্প সময়ে সড়ক মেরামত করা অতি দুরূহ ব্যাপার। ভাঙা রাস্তা দিয়ে ঘরে ফিরতে হবে। অন্যদিকে সড়ক-মহাসড়কের এই বেহাল অবস্থার মধ্যেও আশার কথা শুনিয়েছেন সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, সড়কপথে ভয়, আতঙ্কের কোনো কারণ নেই। বৃষ্টি-বাদল, ঝড় যা-ই হোক না কেন, যেকোনো মূল্যে সড়ক-মহাসড়ক সচল রাখা হবে। যদিও অবস্থা এখনই ভয়াবহ রূপ দেখা দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা সেতুসংলগ্ন এলাকায় ৩২ কিলোমিটার যানজট ছিল। ঢাকা থেকে রংপুর যেতে ১৪ থেকে ১৮ ঘণ্টা লাগছে। রাস্তার অবস্থা নাজুক। এখন নির্বিঘ্নে যাতায়াতের জন্য ঈদের তিন দিন আগে থেকে ট্রাকলরি চলাচল বন্ধ রাখতে হবে। ঈদে ভাড়া বৃদ্ধির কারণে নসিমন, করিমনসহ অন্যান্য ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় নামে। এসব দ্রুত অপসারণ করতে হবে। ট্রেনে ৩৫ শতাংশ ভিআইপি কোটা উঠিয়ে দিয়ে সাধারণ যাত্রীদের সুযোগ দেওয়া হোক। অতিরিক্ত ট্রেন সংযোজন করে দুর্ভোগ কমাতে পারে। শুধু দরকার সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টা।

মিজানুর রহমান

বানাসুয়া, কুমিল্লা।

► নাড়ির টানে মানুষ নিজের জন্মস্থানে ফিরতে শুরু করছে। আর তাতে মানুষের সবচেয়ে বড় ভয়। এ সময় নানা রকম দুর্ঘটনায় হাজারো মানুষ অকালে পরলোকগমন করে। না হয় মানুষ তাদের মূল্যবান মালামাল হারিয়ে ফেলে। ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে প্রতিবারই সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ নানা পদক্ষেপ নেয়। কিন্তু অব্যবস্থাপনা যেন লেগেই থাকে। নানা অঘটনও ঘটে। নিরাপদে বাড়ি ফেরা নিশ্চিত করতে সরকার এবারও বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। সড়ক-মহাসড়কে যানজট যাতে না সৃষ্টি হয় তার জন্য বিভিন্ন পয়েন্টে রোভার স্কাউটসহ এক হাজারের মতো স্বেচ্ছাসেবী নিয়োজিত থাকবে বলে সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে মন্ত্রণালয় যথাযথ সক্রিয় থাকবে। এ ছাড়া ঈদের আগে ও পরে তিন দিন বড় গাড়ি চলতে দেওয়া যাবে না। সরকারের এসব পদক্ষেপ ইতিবাচক। কিন্তু এসবের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করা দরকার। আরো একটি বিষয় হলো, ঈদের সময় মহাসড়কে দুর্ঘটনার আশঙ্কা বেড়ে যায়। বাড়তি ট্রিপের লোভে চালকরা অতি দ্রুতগতিতে গাড়ি চালায়। দীর্ঘ সময় যানজটে থেকে চালকদের মেজাজ ধরে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। এ ক্ষেত্রেও সতর্কতা ও নিরাপত্তামূলক পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। ঈদ উপলক্ষে সবার যাত্রা শুভ হোক, আমরা এ কামনা করি।

আবদুল মোতালেব ভূঁইয়া

ছয়ানী টবগা, চাটখিল, নোয়াখালী।

► সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ চাইলে ঈদ যাত্রা অনেকটাই নিরাপদ করতে পারে। টিকিটের কালোবাজারি রোধ করতে হবে। কাউন্টার থেকেও উচ্চমূল্যে টিকিট বিক্রি হয়, তাও রোধ করতে হবে। ট্রেনের ইঞ্জিন ও বগি বাড়াতে হবে। সম্ভব হলে অতিরিক্ত বাসের ব্যবস্থা করতে হবে। ড্রাইভাররা যেন সুশৃঙ্খলভাবে যানবাহন চালায় তার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষ ও হাইওয়ে পুলিশকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ব্যবস্থা করতে হবে। ঘষামাজা করা পুরনো বাস ও লঞ্চ যেন কোনোভাবেই না চলে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

মো. দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া

লাকসাম, কুমিল্লা।

► ঈদ এলে মানুষের বিড়ম্বনা বাড়ে—এ যেন নিয়তির লিখন হয়ে দাঁড়িয়েছে। নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার অমানবিক কষ্টের মাঝেও মানুষকে পড়তে হচ্ছে অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টি ও ছিনতাইকারীদের কবলে। এ থেকে নিস্তার পেতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী একমাত্র ভরসা। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তাত্ক্ষণিক এদের কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। পরিকল্পিতভাবে দৃঢ় পদক্ষেপের মাধ্যমে এদের নির্মূল করতে পারলেই ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করা সম্ভব।

সাদিয়া আফরোজ মরিয়ম

লাকসাম, কুমিল্লা।

► ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। তাই প্রত্যেক মানুষ প্রিয়জনকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে যায়। অথচ বাড়ি যেতে তারা নানা ভোগান্তির শিকার হয়। এর অন্যতম কারণ যাত্রী পরিবহনের অচলাবস্থা। যেন দেখার কেউ নেই। এখানে মূল সমস্যা হলো জনবলের অভাবে এসব অচলাবস্থা তদারকি করে ব্যবস্থা না নেওয়া। ফলে যে সমস্যা সে সমস্যাই থেকে যাচ্ছে।

এম এ মতিন

বেগুনবাড়ী, বাসাবো, ঢাকা।

► সরকারি প্রশাসনের উদ্যোগ ও গণসচেতনতাই পারে ঈদ যাত্রাকে নির্বিঘ্ন করতে। প্রশাসন যদি অধিক নজরদারি করে যে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যানবাহন চলাচল করবে না এবং যাত্রীরা যদি অতিরিক্ত হয়ে যানবাহনে গমন না করে, তাহলেই ঈদ যাত্রা সুখময় হবে। সবার ঈদ যাত্রা শুভ হোক।

ইঞ্জিনিয়ার জুয়েল

ভৈরব, কিশোরগঞ্জ।

► ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে হলে ট্রেন, বাস ও স্টিমারের সংখ্যা বৃদ্ধি করতে হবে। তাহলেই ঈদের যাত্রীদের কিছুটা ভালো হতে পারে। এর জন্য সরকারিভাবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। প্রতিটি মন্ত্রণালয়ে আলাদাভাবে মনিটরিং করলে সুফল কিছুটা পাওয়া যাবে। রেলে প্রতিটি ট্রেনের বগি বৃদ্ধি করতে হবে। অতিরিক্ত বাসের ব্যবস্থা করতে হবে এবং অতিরিক্ত স্টিমারের ব্যবস্থা করলে ঈদ যাত্রীদের বাড়ি ফেরা ভালো হবে।

মো. আতিকুল্লাহ

গফরগাঁও, ময়মনসিংহ।

► আগামী ২ সেপ্টেম্বর শনিবার পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলিম সম্প্রদায় মহান আল্লাহকে খুশি করতে পশু কোরবানি করবে। ঈদ পালনের জন্য মানুষ ফিরছে সড়ক, নৌ ও আকাশপথে নিজ বাসাবাড়িতে। তাদের ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। সময়মতো টিকিট না পাওয়ায় এই বিড়ম্বনা আরো বেড়েছে। অকাল বন্যায় ২৭ জেলার পথঘাট ক্ষতিগ্রস্ত। ১০০ কিলোমিটার রেলপথ, দুই হাজার ৮০০ কিলোমিটার সড়কপথ ভেঙে গিয়ে যোগাযোগব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কাঁচা সড়কে ভারী যানবাহন চলছে ঝুঁকি নিয়ে। ফিটনেসবিহীন গাড়িগুলো বন্ধ হয়নি। ভাড়া অস্বাভাবিক। এখন ভরা বর্ষা মৌসুম, উত্তাল নৌপথ। তাই ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে যাতায়াত সঠিকভাবে নিশ্চিত করতে হবে।

ফারুক আহমেদ

বাগমারা, রাজশাহী।

► ঈদ যাত্রার ভোগান্তি দুই ধরনের। যানবাহন থেকে সৃষ্ট যানজটের কারণে ভোগান্তি ও খানাখন্দে ভরা বেহাল সড়কের ভোগান্তি। প্রতিটি ঈদের ঠিক আগে আগে চলে ‘সড়ক সংস্কারের’ মহাকর্মযজ্ঞ। জনগণের জন্য যার সুফল বলতে শুধুই চোখের প্রশান্তি এবং সেই সংস্কারকাজের নিম্নমানের কারণে তার স্থায়িত্বও হয় বড়জোর কয়েক মাস। আবার কিছু কিছু জায়গায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যথোচিত নজরদারির অভাবেও যানজটের সৃষ্টি হয়ে থাকে। ঈদ যাত্রাকে নির্বিঘ্ন করতে রাস্তাঘাটের অবকাঠামোগত উন্নয়ন, যানজট এড়াতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সুপরিকল্পনা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ পালন—এই তিনের সমন্বয় ঘটানো বাঞ্ছনীয়।

মুফতি আবদুল্লাহ আল হাদী সোহাগ

ব্যাংক কলোনি, সাভার, ঢাকা।

► ঈদের আগে মহাসড়ক দখলমুক্ত, যানজটমুক্ত, ভাঙাচোরা মহাসড়ক মেরামত, ট্রাকে যাত্রী পরিবহন বন্ধ, রাস্তার পাশে কোরবানির হাট বন্ধসহ পশুবাহী গাড়িতে চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে। ঈদের আগে ও পরে তিন দিন খাদ্য ও ওষুধবাহী গাড়ি ছাড়া অন্য সব পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখতে হবে। এ ব্যাপারে প্রশাসন ও সওজ শ্রমিক সংগঠনগুলোকে দায়িত্ব নিতে হবে। লক্কড়ঝক্কড় গাড়িগুলো মহাসড়কে চলাচল বন্ধ রাখতে হবে।

কামরুজ্জামান

কলাবাগান, ঝিনাইদহ।

► কয়েক দিন পর ঈদুল আজহা। কিন্তু অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে দেশের সড়ক ও মহাসড়কগুলোর অবস্থা বেহাল। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দেশের ২১টি প্রধান জেলার মধ্যে সাত হাজার ১৩০ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশের ৩৯ শতাংশ সড়ক-মহাসড়ক তুলনামূলক ভালো, ৩৭ শতাংশ ভাঙাচোরা, ২৪ শতাংশ মোটামুটি চলনসই। এরই মধ্যে মেঘনা সেতুর ওপর চারটি মালবাহী ট্রাক বিকল হয়ে যাওয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার দাউদকান্দি ও মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া অংশের ৪২ কিলোমিটার রাস্তায় তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। তা ছাড়া ওই মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসের পাশাপাশি ধীরগতির প্রচুর পণ্যবাহী যান চলাচল করে। ফলে ঈদ যাত্রা নিয়ে মানুষ চরম আতঙ্ক ও উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে।

ভূঁইয়া কিসলু বেগমগঞ্জী

বেগমগঞ্জ, নোয়াখালী।

► যাত্রীদের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ভাইয়েরা ধর্মের অনুভূতি হৃদয়ে ধারণ করে আন্তরিকতার সঙ্গে যাত্রীদের সেবায় যাতে শতভাগ এগিয়ে আসে সে লক্ষ্যে প্রশাসনকেই অব্যাহত নজরদারি রাখতে হবে। জোর প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে; গুরুত্বপূর্ণ বাস, লঞ্চ, রেলস্টেশনগুলোয় সিসি ক্যামেরা ও মাইকের মাধ্যমে যাত্রীদের পেছনে আছে মর্মে সাহস দিলে ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে বলে মনে করি।

এইচ কে নাথ

পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম।

► ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে হলে সবাইকে ট্রাফিক আইন মানতে হবে। আইন মানার মাধ্যমেই আমরা যাবতীয় জটিলতা এড়াতে পারব। সব সময় মনে রাখতে হবে, সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি। তাই তাড়াহুড়ো না করে ধৈর্য ধরে যাতায়াত করতে পারলে সবাই নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারব।

শিবু প্রসাদ মজুমদার

লেকসার্কাস, কলাবাগান।

► ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে হলে প্রশাসনকে কঠোর নজরদারি করতে হবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ঈদ যাত্রার যানবাহনকে পরিচালনা করতে হবে। এসব গাড়ি যেন অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই না হয় সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হবে। আমরা নিরাপদে ঈদ যাত্রা করে প্রিয়জনের সঙ্গে বাড়িতে গিয়ে ঈদ করতে চাই। আমরা প্রতিবছরের মতো দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে অকালে প্রাণ হারাতে চাই না।

মো. জামরুল ইসলাম

দক্ষিণগাঁও, সবুজবাগ, ঢাকা।

► মুসলমানদের সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান ঈদকে সামনে রেখে আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিজন সবাইকে নিয়ে ঈদ করার জন্য ঘরে ফিরবে মানুষ। আমাদের সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রী, মন্ত্রীদের ভেতরে একজন মডেল এবং তাত্ত্বিক নেতা। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে রাস্তাঘাট ক্ষতি হয়েছে। এতে ঈদে ঘরফেরা মানুষের কিছুটা অসুবিধা হচ্ছে। কিন্তু যোগাযোগমন্ত্রী দিন-রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, যাতে নির্বিঘ্নে মানুষ ঘরে ফিরতে পারে। এরই মধ্যে তিনি অদক্ষ চালক, ফিটনেসবিহীন গাড়ি, রাস্তার ওপরের হাটবাজার ইত্যাদি অপসারণের জন্য প্রশাসনযন্ত্রকে আরো গতিশীল করেছেন। নির্বিঘ্নে মানুষ যাতে ঈদে ঘরে ফিরতে পারে এবং ঈদ শেষে কাজে যোগ দিতে পারে, সেই পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে সবার আন্তরিকতা প্রয়োজন।

কুমারেশ চন্দ্র

ঝিনাইদহ বাস টার্মিনাল, ঝিনাইদহ।

► মহাসড়কগুলোর এখানে-সেখানে অটোরিকশা, সিএনজি, লেগুনাসহ দূরপাল্লার বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠানো যাবে না। কোরবানির পশু পরিবহনকারী ট্রাক প্রশাসনের বেঁধে দেওয়া রাতের সময় রাজধানীতে প্রবেশ করবে। বিশেষ বিশেষ যানজটপূর্ণ এলাকায় পুলিশ টহল দিয়ে যানজট দ্রুতগতিতে সমাধান দিলে ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে বলে আশা করা যায়।

মমিন হৃদয়

নাজুয়ারপাড়া, কাজীপুর, সিরাজগঞ্জ।

► প্রতিবছর দেখা যায় ঈদের সময় কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে লঞ্চ পরিচালনা করে। তাতে ঘটে দুর্ঘটনা। মারা যায় বিপুলসংখ্যক মানুষ। দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। এই দুর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চে যাত্রী তোলার ব্যাপারটা কঠোরভাবে মনিটর করতে হবে। কোনো ছাড় দেওয়া যাবে না। এখন ঝড়-বৃষ্টির সময়, লঞ্চ দুর্ঘটনার সুযোগ আরো বেশি। তাই সবাইকে অনুরোধ, নিজের নিরাপত্তার স্বার্থে লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে কেউ উঠবেন না। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা।

শহীদুল মোড়ল

নলিয়ান, দাকোপ, খুলনা।

► রাজধানী সব কিছুর প্রাণকেন্দ্র এবং একমাত্র ভরসাস্থল হওয়ায় দিন দিন মানুষ বাড়ছে, সমস্যাও বাড়ছে। প্রায় দেড় কোটি লোকের বাস ঢাকায়! কাজের সন্ধানে মানুষ ছুটে আসে ঢাকায়। আবার ঈদ-পার্বণ এলেই ছুটে নিজ বাড়ি অভিমুখে। একসঙ্গে, একই সময়ে এত মানুষের আনাগোনায় ভারসাম্যহীন ও অস্বাভাবিক অবস্থার সৃষ্টি হওয়াই স্বাভাবিক! বার্ষিক এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণের একমাত্র উপায় হচ্ছে প্রশাসন তথা কর্মস্থলের বিকেন্দ্রীকরণ। অর্থাৎ উপজেলা ছাড়িয়ে ইউনিয়ন, এমনকি সম্ভব হলে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। এতে সবাইকে আর ঢাকা অভিমুখে ছুটে আসতে হবে না। আবার ফিরে যাওয়ার জন্যও অস্থির হতে হবে না। বিকট এক সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে সবাই।

হুমায়ুন কবির

হাজারীবাগ, ঢাকা।

image-id-663299

উন্নয়নের অন্তরায় দুর্নীতি

image-id-663296

আদর্শহীন রাজনীতির ভবিষ্যৎ কী

image-id-662710

তিনি কি ভয় পেয়ে গেলেন

image-id-662704

সরব সবুজে নীরব কর্মী

পাঠকের মতামত...
image-id-662320

শিক্ষক এবং শিক্ষকতা

ছোট শিশুদের স্কুল দেখতে আমার খুব ভালো লাগে। সুযোগ পেলেই...
image-id-662008

স্বাধীন কুর্দি রাষ্ট্র নিয়ে যথেষ্ট জটিলতা

পরস্পরবিরোধী রাজনৈতিক মতাদর্শ সত্ত্বেও জাতীয়তাবাদী ও সমাজতন্ত্রী উভয়ে উপদ্রুত জাতিসত্তার...
image-id-661460

তৃতীয় ধারার জোট গঠনে সব বাধাই অরাজনৈতিক

বিশাল জনসমর্থিত দল না হলেও রাজনীতিসচেতন সাধারণ মানুষের কাছে কোনো...
image-id-661457

মিয়ানমার রোহিঙ্গা ইস্যু এবং ইইউ-মার্কিন বিধি-নিষেধ

মিয়ানমারের ওপর, বিশেষ করে সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের ওপর বিধি-নিষেধ...
image-id-663597

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে দলের ভবিষ্যৎ করণীয় নিয়ে আলোচনা

তিন মাস পর সোমবার অনুষ্ঠিত বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে দলের...
image-id-663592

ফিফার বর্ষসেরা একাদশে রিয়ালের ৫, বার্সার ৩

সোমবার রাতেই ঘোষণা করা হবে বেস্ট ফিফা অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীর নাম।...
image-id-663588

স্তন কেটে, ধর্ষণের পর লজ্জাস্থানে কাঠ গুঁজে রোহিঙ্গা নারীদের নির্যাতন

আগস্ট থেকে অক্টোবর। পেরিয়ে গেছে দু’মাস। এরপরও মিয়ানমারের রাখাইনে মুসলিম...
image-id-663585

তারকাদের সত্য-মিথ্যা ১৩ সেক্স স্ক্যান্ডাল

হলিউড তারকাদের জীবনে ‘স্ক্যান্ডাল’ নিত্যদিনের ঘটনা। বলিউডেও এরকম স্ক্যান্ডাল নিয়ে...
© Copyright Bangladesh News24 2008 - 2017
Published by bdnews24us.com
Email: info@bdnews24us.com / domainhosting24@gmail.com